পুঁইশাক খুবই জনপ্রিয় একটি খাবার

 পুঁইশাক খুবই জনপ্রিয় একটি খাবার। বিশ্বজুড়ে এ শাকের চাষ হয়। এর কা-, পাতা, বীজÑ সবই খাওয়া যায়। পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ পুঁইয়ের পাতায় খুব সামান্য পরিমাণে ক্যালরি থাকে। পুঁইশাকে প্রোটিন, ফ্যাট, ভিটামিন এ, সি, ই, কে, ফলিক অ্যাসিড, রিবোফ্লাভিন, নিয়াসিন, থায়ামিন এবং বিভিন্ন ধরনের খনিজ যেমনÑ ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম এবং আয়রন থাকে। বিভিন্ন ধরনের খনিজ থাকায় রক্তশূন্যতা দূর করতেও কার্যকরী ভূমিকা পালন করে পুঁইশাক। তাছাড়া পুঁইশাক নানা ধরনের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে। পুঁইপাতা এক সময় গোসলের আধা ঘণ্টা আগে বেটে মাথায় লাগানো হতো ভালো ঘুমের জন্য। এছাড়া মাথা ঠান্ডা রাখা, ত্বকের সমস্যা, যৌন দুর্বলতা, আলসার এবং গর্ভবতী নারীদের চিকিৎসায় ব্যবহার হয় পুঁইপাতা। লিউকেমিয়া, মুখগহ্বরের ক্যানসারসহ বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় প্রতিষেধক হিসেবে প্রাচীনকাল থেকেই পুঁইশাক ব্যবহার হয়ে আসছে। পুঁইশাকে রিঅ্যাকটিভ অক্সিজেন স্পিসিজ নামক এক ধরনের উপাদান থাকে যা বার্ধক্য রোধ করতে সাহায্য করে। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ পুঁইশাক রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। পুঁই শাক খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে শরীরে ভালো কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *